Youtube google+ twitter facebook Bangla Font Help

আমলাযন্ত্রের রাজনীতির বলি যেন না হন সিটি মেয়র সাদিক!

৩:৪৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৫, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক :: বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে গত ১৮ আগস্ট রাতের ঘটনা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি পোষ্ট করেন মৌমিতা বিনতে মিজান নামের একজন ফেসবুক ইউজার। পোষ্টটি নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। অনেকেই পোষ্টটিতে কমেন্ট করেন এবং শেয়ার করেন।

মৌমিতা বিনতে মিজানের দেয়া পোষ্টটি হুবাহু তুলে ধরা হলো-
বরিশালে ১৮ তারিখ থেকে যা ঘটে চলছে তা খুবই দুঃখজনক। আমরা সাধারণ পাবলিক খুবই হতাশ হচ্ছি। অনেক কারণে আমরা কোনো কিছু প্রতিক্রিয়া জানানো থেকে বিরত থাকি, কিন্তু এইবার কেনো যেনো আর পারলাম না। বিসিসি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহকে নিয়ে যে রাজনীতি শুরু হয়েছে তা আরো বেশি ভয়ানক মনে হচ্ছে। রাতের বেলা ইউএনও’র বাসভবনের সামনে ব্যানার খুলতে যাওয়া নিয়ে ঘটনা, প্রত্যক্ষভাবেই অনেকগুলো বিষয় সামনে চলে আসে। তর্কের খাতিরে ধরে নিলাম ইউএনও’র সাথে সিটি কর্পোরেশন কর্মচারিরা খারাপ ব্যবহার করেছে, কিন্তু ইউএনও মহোদয় সিটি মেয়রের কাজে নিজ বাসভবন ছেড়ে হস্তক্ষেপ করতে আসলেন কেনো? আসলেন তো ভালো কথা, গুলিছোড়ার মতো এমন কী পরিস্থিতি হয়েছিলো? তারপর দলীয় কর্মীরা হয়তো দলেবলে ছুটে এসেছেন, এটা রাজনীতির ধরন, ইউএনও মহোদয়ও ভার্সিটিতে রাজনীতি করেছেন, তিনি তা ভালোই বোঝেন বলে আমার মনে হয়; কিন্তু সেই দলবলকে তিনি উসকে দিলেন কেনো? যেখানে মেয়র মহোদয় নিজে গেলেন, তিনি একটি মহানগরের মেয়র তারও তো রাষ্ট্রতন্ত্রে একটা অবস্থান রয়েছে, সেখানে তাকে নিয়ে কেনো বিষয়টার মিমাংসার চেষ্টা করলেন না, উল্টো মেয়রের পরিচয় পেয়েও তাকে লক্ষ করে গুলি ছোড়া হলো কেনো? বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মী জনতার অংশ, তাদেরকে ক্ষেপিয়ে তোলা কোনোভাবেই সমীচীন হয়নি বলেই মনে হয়। এতো কিছু ঘটন-অঘটনের মধ্যে পূর্বাপর বিচার না করেই একতরফা মেয়রের বিরুদ্ধে অভিযোগ চাপানো কেমন যেনো একটা অশনিসংকেত বলেই মনে হচ্ছে। যেসব মিডিয়া এতোদিন সাদিক বন্দনায় মত্ত ছিলো তারাও আজ ইউএনও’র বাসায় হামলা বলে ঘটনার শিরোনাম করছেন। হায়রে, স্বার্থের দুনিয়া।

আর অপর দিকে, আমলাযন্ত্র কী করলো! ইউএনও প্রশাসন ক্যাডারের সদস্য বলে তাকে বাঁচাতে মরিয়া হয়ে গেলো। দলীয় রাজনীতিকেও তারা হার মানালো। বলছেন, আইনের মাধ্যমে তারা বিষয়টি মোকাবেলা করবেন, আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে। কিন্তু তাতো তারা হতে দিচ্ছেন না, ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের আগেই মেয়রকে বলে দিচ্ছেন, দুর্বৃত্ত। তিনি নাকি গোটা বরিশালে ত্রাসের সৃষ্টি করেছেন। এসব কি প্রশাসনের ভাষা? তারা রাজনৈতিক দুর্বৃত্ত শব্দ ব্যবহার করেছেন তাদের প্রতিক্রিয়ায়, যা আমাদের মতো সাধারণ মানুষের কানে ভালো শুনাচ্ছে না, কারণ তারা রাষ্ট্রযন্ত্রের গুরুত্বপূর্ণ পদাধিকারী, কোনো রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ নন। তারা নিজেরাও রাজনীতি কম করেন নি, প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি যথেষ্ট আস্থা প্রকাশ করেন, তাদের ভাষা এমন – “প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা এর নেতৃত্বে বাংলাদেশের সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারী অত্যন্ত আস্থাবান এবং তাঁর লালিত দেশপ্রেমের চেতনা ধারণ করে কাজ করছে।” এটা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে স্মরণ করিয়ে দেয়া নয় তো? অপরদিকে বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠজন, পঁচাত্তরের কালরাতের শহীদ পরিবারের সদস্য আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর পুত্র ও শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাতের দৌহিত্র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ কি ভিন্ন আদর্শ নিয়ে বরিশালের মেয়র হয়েছেন! ইউএনও মহোদয় তার অভিযোগে বরিশালের মাননীয় এমপি ও প্রতিমন্ত্রীর ব্যানার ছেঁড়ার কথা উল্লেখ করেছেন, এটা কি রাজনীতি নয়? একজন সিটি মেয়রের নির্বাহী আদেশে ব্যানার অপসারণ করা হচ্ছে, তারই সিটির আওতার মধ্য থেকে, তাতে ইউএনও মহোদয় যেভাবেই হোক জড়িয়ে গেলেন। এখন তিনি দুই পক্ষকে মুখোমুখী করার রাজনীতি করলেন।

তবে আমার মতো সাধারণের কথা হলো, বরিশাল আওয়ামী নেতাকর্মীরাও ধোয়া তুলসিপাতা নয়, দোষ তাদেরও থাকতে পারে। হতে পারে ইউএনও মহোদয় হয়তো ঠিকই বলেছেন, তাতো সবই সঠিক ও সুষ্ঠু তদন্তের বিষয়। আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হলে আগে থেকেই কেনো অন্যকে দুর্বৃত্ত বা দোষী বলা হচ্ছে? আর সেটা যখন দেশের আমলাযন্ত্রের সর্বোচ্চ মহল থেকে আসে তখন তা ভয়ানক বলেই মনে হয়। ঘটনার তদন্ত হোক, দোষীদের বিচার হোক; তবে রাজনীতির বলি যেনো না হন, বিসিসি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ।

[addthis tool="addthis_inline_share_toolbox_nev1"]

পাঠকের মন্তব্য

rss goolge-plus twitter facebook
Design & Developed By:

উপদেষ্টা মন্ডলির সভাপতি- ফারজানা ইয়াসমিন রিমি

প্রকাশক ও সম্পাদক  : এম. জাহিদ 

বার্তা- সম্পাদক : মেহেদী  হাসান
সহ- ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: শহিদুল্লাহ সুুুমন

  • বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়-

ভূইয়া ভবন, ৩য় তলা

ফকিরবাড়ী রোড, বরিশাল।

  • যোগাযোগ- ০১৭৯২০৫৯০৩২

ই-মেইল: mjahidbsl@gmail.com

টপ
  করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকলে চলতি বছরেই প্রাথমিকের লিখিত পরীক্ষা   ২৭ সেপ্টেম্বরের পর খুলছে বিশ্ববিদ্যালয়   নবম-দশমে বিভাগ বিভাজন থাকবে না   বিশ্ববিদ্যালয় খোলার বিষয়ে বৈঠক চলতি সপ্তাহেই   ১৮ মাস পর মুখর বরিশালের স্কুল-কলেজ; খুশি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা   শিক্ষার্থীদের বেতন নিয়ে অভিভাবকদের যেন চাপ দেওয়া না হয়: শিক্ষামন্ত্রী   করোনা সংক্রমণ বাড়লে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পুনরায় বন্ধ করে দেয়া হবে: শিক্ষামন্ত্রী   সংক্রমণ বাড়লে ফের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ: স্বাস্থ্যমন্ত্রী   বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের পরিবহণ-আবাসিক খরচ মওকুফ   শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের দ্বার খুলতে বিকেলে বসছে আন্তঃমন্ত্রণালয়ে উচ্চপর্যায়ের বৈঠক   বরিশালে বন্ধ স্কুল-কলেজে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা শুরু   ১২ সেপ্টেম্বর খেকে খুলবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান   দেশের সব স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়ার ব্যবস্থা হচ্ছে: সংসদে প্রধানমন্ত্রী   আগামী অক্টোবরে স্কুল-কলেজ খোলার ঘোষণা আসতে পারে   আজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে দুই মন্ত্রণালয়ের বৈঠক   যেভাবে নেয়া হবে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা   ঢাবি’র অনলাইন ক্লাসে সন্তুষ্ট ২.৭ ভাগ শিক্ষার্থী : জরিপ   চলতি সপ্তাহে ঘোষণা দেয়া হবে এসএসসি-এইচএসসিতে অটোপাস না পরীক্ষা   ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার প্রবেশপত্র ডাউনলোড স্থগিত   টিকা দিয়েই স্কুল-কলেজ খুলে দেব : প্রধানমন্ত্রী